প্রত্যেকটি শক্তিশালী দেশে এখন সেনাবাহিনী এর সাথে সাথে গোয়েন্দা সংগঠন এর ওপর অনেকটা নির্ভরশীল কারণ সম্প্রতি সময়ে বিভিন্ন দেশ প্রত্যক্ষ যুদ্ধের চেয়ে স্নায়ুযুদ্ধে জড়িত হচ্ছে। আজকে আমি লিখবো পৃথিবীর কিছু বিখ্যাত বা কুখ্যাত গোয়েন্দা সংগঠন নিয়ে।

১. ISI (Inter- Services Intelligence), Pakistan এর এই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৪৮ এই সংগঠন এর সদরদপ্তর পাকিস্তান এর ইসলামাবাদ শহরে। এই সংগঠনটি এতই শক্তিশালী যে সেনাবাহিনী এর পাশাপাশি পরোক্ষভাবে পুরাদেশ পরিচালনা ভূমিকা রাখে। অনেকের মতে এই সংগঠন একটি শীর্ষস্থানীয় গোয়েন্দা সংস্থা।

২.RAW(Research and Analysis Wing), India এর এই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৬৮ সালে। এই সংগঠনটির সদরদপ্তর নয়াদিল্লিতে। Raw মূলত পাকিস্তান আর চায়নার চলমান পরিস্থিতি, কার্যক্রম আর আন্দোলনগুলাকে পরিবেক্ষন করে, তাদের ভিতরের মনে ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়গুলোকে IB নামক সংগঠন পরিবেক্ষন করে।

৩.Mossad, Israel এর এই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৪৯ সালে। এই সংগঠনের সদরদপ্তর তেলআবিব। মোসাদকে সব গোয়েন্দা সংগঠনের ধর্মপিতা মনে করা হয়। পৃথিবীর সব থেকে দুঃসাহসী গুপ্তচর অপেরশনগুলা এই সংগঠনটি করেছে। অনেকের বিশ্বাস যে Mossad এর কারণেই ইসারইল এখন তাদের স্থানে শক্ত ভাবে দাঁড়িয়ে আছে। মোসাদ নিয়ে লিখতে গেলে অনেক সময় লাগবে। ভবিষ্যতে মোসাদ নিয়ে পুরা একটা বিশ্লেষণধর্মী লিখা দিবো।

৪.CIA(Central Intelligence Agency),USA এর এই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৪৭ সালে। CIA এর সদরদপ্তর হচ্ছে Fairfax,Virginia আমেরিকার আধিপত্য এবং আমেরিকাকে পরাশক্তিতে পরিণত করতে CIA ভূমিকা অপরিসীম। CIA এর ব্যার্থতা কম নাই তাও এটি পৃথিবীর অন্যতম শক্তিশালী গোয়েন্দা সংস্থা।

৫. MI6 (Military Intelligence, Section 6),UK এর এই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয় 1909 সালে MI6 এর সদরদপ্তর হচ্ছে লন্ডন। MI6 পৃথিবীর পুরাতন গোয়েন্দা সংগঠন এর একটি। এরা তাদের অপরেশনগুলা প্রথম বিশ্বযুদ্ধ আগে থেকে শুরু করে। বিশ্বযুদ্ধতে এই সংগঠন এর ভূমিকা অপরিসীম এবং হিটলার এর পরাজিত হওয়ার পিছনে এই সংগঠন এর ভূমিকা অনেক।

৬.GRU (Main Intelligence ), Russia এর এই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয় 1918 GRU এর সদরদপ্তর হচ্ছে মস্কো। এটি রাশিয়ার অন্যতম গোয়েন্দা সংস্থা। এই সংগঠনটি রাশিয়াকে পরাশক্তিতে পরিণত করতে সাহায্য করেছে এবং অন্যান্য পরাশক্তির সাথে টক্কর দিতে সাহায্য করেছে।

৭. MSS (Ministry Of State Security), China এর এই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৮৩ সালে। MSS এর সদরদপ্তর হচ্ছে বেইজিং। এটি চায়নার একটি প্ৰধান গোয়েন্দা সংগঠন। এই সংগঠন অভ্যন্তরীন এবং বহিমুখ বিষয় গুলো পরিবেক্ষন করে। বিভিন্ন আন্দোলন আর কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ আর পর্যবেক্ষণ করাই এর মূল কাজ।

৮. BND , Germany এর এই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৫৬ সালে। এই সংগঠনের সদরদপ্তর হচ্ছে বার্লিন। টেকনলোজি এর দিক দিয়ে এই সংগঠনের তুলনা কারো সাথে হয় না। এই সংগঠনের নজরদারি পদ্ধতি হলো চমকপ্রদ। মধ্যপ্রাচ্য আর দক্ষিণআমেরিকার তথ্য প্রদান করতেও এই সংস্থার অবদান অনেক।

৯. DGSE, France এর এই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৮২ সালে।এই সংহগঠনটির সদরদপ্তর হলো প্যারিস। এটি এই লিস্টের অন্যান্য সংগঠন এর তুলনায় নতুন। তাও কম সময়ে এটি একটি অন্যতম গোয়েন্দা সংগঠন হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছে।

১০. ASIS, Australia এর এই সংগঠন প্রতিস্ঠিত হয় ১৯৫২ সালে। এর সদরদপ্তর হচ্ছে ক্যানবেরা । এই সংগঠনটি মূলত এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগররিক অঞ্চলে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে। আর এটিও একটি অন্যতম গোয়েন্দা সংস্থা।

আজকের মতো এইখানে শেষ করছি, পরের বার লিখবো  Mossad আর ISl এর গোপন মিশন গুলা নিয়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here