৯। Meteor Crater


উত্তর আমেরিকার অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যে এই ক্রেটার এর অবস্থান। ১৯৬০ সালের দিকে বিজ্ঞানীরা এই ক্রেটারের অস্থিত্ব নিয়ে নিশ্চত হন। এই ক্রেটার যে ধরনের সিলিকা বালু দ্বারা গঠিত হয়েছে তা কোন আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাতের ফল নয়। বরং আরো উচ্চ তাপ ও চাপের ফলে এ ধরনের সিলিকা বালুর সৃষ্টি হয়ে থাকে। তাই বিজ্ঞানীরা মনে করেন এখানে পঞ্চাশ হাজার বছর পূর্বে কোন উল্কা পিন্ডের পতন হয়েছিল। তারা আরো এই জায়গা নিয়ে গবেষণার পরে বলেন, এই উল্কার মধ্যে লোহা ও নিকেল জাতীয় পদার্থ ছিল। এই উল্কার ব্যাস ছিল আনুমানিক পঞ্চাশ মিটারের মত। মহাকাশ থেকে ছিটকে পড়ার সময় এতে আগুন জ্বলতে জ্বলতে বিরাট অংশ এখানে পতিত হয়। যা প্রায় ১২০০ মিটার প্রশস্ত জায়গা জুড়ে রয়েছে। এর গভীরতা ১৭০ মিটার। যখন এই ক্রেটারটি তৈরী হয়েছিল তখন এখানে ঘন পশমে আবৃত বিশাল দেহেম ম্যামথ বসবাস করত। এখানকার আবহাওয়া শুষ্ক হওয়ার কারণে বায়ুর ক্ষয়কার্য এখানে কম সংগঠিত হয়ে থাকে। যার দরুন বহু বছর ধরে এর গঠন অবিকৃত রয়ে গেছে।

১০। Pamukkale Travertine Terraces


অপার সৌন্দর্য্যরে কেন্দ্রবিন্দু হল তুরস্কের পামুক্কেল ট্রেভারটাইন টেরেস। যার কারণে বছরের সবসময় হাজার হাজার পর্যটকের দেখা মেলে এখানে। পামুক্কেল শব্দটির তুর্কি অর্থ হল কটন ক্যাসেল বা তুলার দূর্গ। অপূর্ব সুন্দর এই কেল্লাটিতে গেলে এমনিতেই আপনার মন ও শরীর ভাল লাগবে। তাই রোমান সময়কাল হতে একে প্রাকৃতিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র বলা হয়। এটি দেখতে তুষারপ্রাচীরে আবৃত হ্রদের মত। যার উপরিভাগ তুলার মত মসৃন। ক্যালসিয়াম কার্বনেট জমে তৈরী হয়েছে নয়নাভিরাম সৌন্দর্য্যমন্ডিত এই টেরেসের ধাপগুলো। এর উপরে রয়েছে গরম পানির ঝরনা। যা থেকে অবিরত প্রবাহিত পানি টেরেসের উপর দিয়ে বয়ে চলেছে। পানির মধ্যকার মিনারেল টেরেসের উপর জমা হয়ে টেরেসকে তুলার মত কোমল করেছে। এই ঝর্নাটি নীল রং এর এবং এর তাপমাত্রা ৩৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস। যা স্থানটিকে আরো বেশী মোহনীয় করে তুলেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here